Take a fresh look at your lifestyle.

‘আমরা এতটা গাধা না যে ডিভোর্স না দিয়ে বিয়ে করব’

0

ক্রিকেটার নাসির হোসেন সম্প্রতি খবরের শিরোনামে ছিলেন অক্রিকেটীয় কারণে। এবার বিতর্ক পেছনে ফেলে মনোযোগটা ক্রিকেটে ফেরাতে চান একসময়ের জাতীয় দলের নিয়মিত এই ক্রিকেটার। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ঘরোয়া টুর্নামেন্ট জাতীয় লিগ দিয়ে প্রায় এক বছর পর ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরতে যাচ্ছেন তিনি। আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে এ আসর। এ বিষয়ে রোববার (২১ মার্চ) মিরপুর একাডেমি মাঠে সাংবাদিকদের জানান ব্যক্তিগত পরিকল্পনার কথা।

এছাড়াও এ দিন তার বিয়ে সংক্রান্ত বিষয় নিয়েও কথা বলেছেন নাসির। সকল বিতর্ক ছাপিয়ে ব্যাটিং-বোলিংয়ে মন দেওয়া এখন নাসিরের লক্ষ্য। তিনি বলেন, ‘এটা ক্রিকেট মাঠ। এখানে খেলতে এলে আমার মাথায় বাইরের চিন্তা থাকে না। কোনো খেলোয়াড়েরই থাকে না। বাইরে যা–ই হোক না কেন, ব্যাটিং–বোলিং করার সময় এসব চিন্তা থাকে না। আমি যা-ই করেছি আইন অনুযায়ী করেছি।’

নাসির বলেন, ‘হয়তো সংবাদ সম্মেলন ডেকে আপনাদের বিস্তারিত দেখিয়ে দেব। এটুকুই শুধু বলি, আমরা এতটা গাধা না যে ডিভোর্স না দিয়ে বিয়ে করব। আর কী বলব আমি… দেখুন, আমরা সব কাগজপত্র সেভাবে দেখাইনি। ২-৩ জন ইউটিউবার এসব নিয়ে খবর প্রচার করছে আর মানুষজন এতটাই অশিক্ষিত, একতরফাভাবে এসব শুনে মাতামাতি করছে।’

এদিকে, দীর্ঘ বিরতির পর জাতীয় লিগে নিজের পারফরম্যান্স ফেরাতে চান নাসির। ব্যাট হাতে হতে চান সেরা রান সংগ্রাহক। নিজ দল রংপুরকে জেতাতে চান জাতীয় লিগের শিরোপা। প্রথম স্তরের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে রংপুরের প্রথম প্রতিপক্ষ ঢাকা বিভাগ। সাভারের বিকেএসপিতে হবে ম্যাচটি।

ডাবল রাউন্ড রবিন পদ্ধতিতে হতে যাওয়া পুরো আসরটিতে সর্বোচ্চ ছয় ম্যাচ খেলতে পারবেন নাসির। আর এই ছয় ম্যাচে অন্তত ৮শ থেকে ১ হাজার রান করার লক্ষ্য স্থির করেছেন এই অফস্পিনিং অলরাউন্ডার।

নাসির জানান, ‘এটা আমার ফেরার টুর্নামেন্ট। চেষ্টা থাকবে অন্ততপক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়ার। যেহেতু ৬টা ম্যাচ, তাই এই ছয় ম্যাচে যেন অন্তত ৮০০ বা এক হাজার রান করতে পারি। এটাই আমার চেষ্টা থাকবে।’

জাতীয় লিগের আগে ফিটনেস টেস্টে নজরকাড়া স্কোর করলেও, এখনও ইনজুরি নিয়ে ভয় কাটেনি নাসিরের। তবে খেলার মাধ্যমেই পুরোপুরি ফিট হতে পারবেন বলে বিশ্বাস তার, ‘সত্যি বলতে ইনজুরি এখনোও আমার মাথা থেকে পুরোপুরি যায়নি। এখনও একশভাগ ফিট বলব না। মনের মধ্যে ভয় কাজ করছে। চেষ্টা করছি শতভাগ ফিট হওয়ার জন্য। খেলার মাধ্যমেই ভয়টা কাটানো সম্ভব।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.