Take a fresh look at your lifestyle.

কিশোরীকে চেতনা-নাশক ওষুধ মাখিয়ে ধর্ষণ করল ফুফা

0

রাজবাড়ীর পাংশা পৌরসভাধীন নারায়নপুর এলাকায় পিতার বোনের স্বামী কর্তৃক ১৪ বছরের এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষক ফুফা আরিফুল ইসলাম (৩৫) কে গ্রেফতার করেছে পাংশা থানা পুলিশ। এ ঘটনার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আশুলিয়ায় এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ধর্ষিতার বড় বোন সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ১০/১৫ দিন আগে ছেলে সন্তান জন্ম দেওয়ায় কিশোরীর ফুফু জুলেখা বেগম (২৭) এর বাচ্চা দেখাশোনা করার জন্য ওই কিশোরীর বাড়িতে অবস্থান করেন। জুলেখা বেগমের স্বামী আরিফুল ইসলাম বাড়িতে একা থাকায় খাওয়া-দাওয়া সমস্যা হওয়ার কারণে ফুফু জুলেখা ওই কিশোরীকে তার ফুফাকে রান্না করে দিতে তার নিজ বাড়িতে পাঠায়। পরে গত ২০ ফেব্রুয়ারি বিকেল পাঁচটার দিকে কিশোরীর ফুফা ঝালমুড়ির সাথে চেতনা-নাশক ওষুধ মাখিয়ে তাকে খাওয়ায়। এর কিছুক্ষণ পর ওই কিশোরী অসুস্থ বোধ করলে সে শোবার ঘরে গিয়ে শুয়ে পড়ে। সেদিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার ঘুম ভাঙলে সে দেখে তার ফুফা তার বুকের উপর। এ সময় সে মুখ বাঁধা থাকায় চিৎকারও দিতে পারেনি। পরে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে আরিফুল ইসলাম। এ বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য ভয়-ভীতি দেখানো হয় ওই ভুক্তভোগী কিশোরীকে। পরবর্তীতে আসামি আরিফুল ইসলাম মোবাইল ফোনে কল দিয়ে কিশোরীর মাকে অসুস্থতার কথা জানিয়ে মেয়েকে নিয়ে যেতে বলেন। কিশোরীর মা এসে মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে গেলে কিশোরী মাকে সব বলে দেয়। ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে মেয়েকে নিয়ে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান তার মা। পাংশা হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে মেয়েকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়। কিন্তু আর্থিক অনটনের কারণে মেয়েকে ফরিদপুর নিয়ে চিকিৎসা করানো সম্ভব না হওয়ায় বাড়িতে নিয়ে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা করানো হয়। পরবর্তিতে ২৩ ফেব্রুয়ারি মেয়ের শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হলে তাকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়।

এরপর ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ২৩ ফেব্রুয়ারি পাংশা মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। ২৫ ফেব্রুয়ারি পাংশা থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে আশুলিয়া থানার বলিবদ্র বাজারের পাশে ওভার ব্রিজের নিচে চটপটি দোকানের সামনে থেকে লম্পট ফুপ্পা আরিফুল ইসলামকে গ্রেফতার করে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.